সাংবাদিক নির্যাতনে রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারসের নিন্দা

ঢাকা, জুন ০১ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

আদালতপাড়ায় সাংবাদিক নির্যাতনকারী পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংগঠন রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস।

প্যারিসভিত্তিক এ পর্যবেক্ষক সংগঠনটি গত ৩০ মে দেওয়া ওই বিবৃতিতে বাংলাদেশের প্রথম ইন্টারনেটভিত্তিক সংবাদপত্র বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের কার্যালয়ে সন্ত্রাসী হামলারও তীব্র নিন্দা জানায়।

বিবৃতিতে গত ২৬ মে রাজধানীতে ছাত্র বিক্ষোভের সংবাদ সংগ্রহের সময় প্রথম আলো পত্রিকার তিন আলোকচিত্র সাংবাদিকের ওপর পুলিশের হামলার ঘটনার কথাও উল্লেখ করা হয়।

গত সপ্তাহে রাজধানীতে মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে বিক্ষোভের সময় দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হন প্রথম আলোর তিন ফটো সাংবাদিক। আদালত পাড়ায় পুলিশের হাতে এক তরুণীর শ্লীলতাহানির খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে তিন সাংবাদিক পিটুনির শিকার হন। আর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কার্যালয়ের সামনে এই ইন্টারনেট সংবাদপত্রের দুই সাংবাদিককে ছুরি মেরে আহত করে সন্ত্রাসীরা।

এর আগেও গত কিছুদিন ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

‘বছরের শুরু থেকেই এ ধরনের ঘটনা ব্যাপকভাবে বেড়েছে’ উল্লেখ করে গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধে পদক্ষেপ নিতে সরকারের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।

সংস্থাটি বলেছে, “অনেক সময় সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনার সময় পুলিশ নিষ্ক্রিয় থাকে যা তথ্য পাওয়ার স্বাধীনতাকে মারাত্মকভাবে ক্ষুণœ করে।”

রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস বলেছে, “গত কয়েক মাসে ক্রমবর্ধমান নির্যাতন বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কয়েকবার সরকারের কাছে আমরা আহ্বান জানিয়েছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।”

“প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স¤প্রতি গণতন্ত্র উন্নয়নে তার কর্মকা-ের কথা উল্লেখ করেছেন। তাকে অবশ্যই সাংবাদিকদের নিরাপত্তা রক্ষায় দ্রুত হস্তক্ষেপ করতে হবে।”

এতে আরো বলা হয়, “মুক্ত গণমাধ্যমের নিরাপত্তা কোনোভাবেই হুমকির মুখে থাকা উচিত নয়। গণতন্ত্রকে যথাযথভাবে কার্যকর করতে শাস্তির ব্যবস্থা থাকা জরুরি।”

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, এ বছরের শুরু থেকেই বাংলাদেশে সাংবাদিকদের কাজের পরিবেশের মারাত্মক অবনতি হয়েছে। রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারসের সংকলন করা ২০১১-১২ সালের বিশ্ব গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সূচকে তালিকাভুক্ত ১৭৯টি দেশের মধ্যে ১২৯তম অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।