অবশেষে থামলেন আবুল হোসেন!

probz blog

পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন নিয়ে শেষ পর্যন্ত যৌক্তিক সমাধানের দিকে এগুচ্ছে সরকার।

আবুলকে অতি কষ্টে বিসর্জন দিল আওয়ামী লীগ সরকার। উনি যদি সত্যি তুলসীপাতা হয়ে থাকেন, তবে তার ভয় কি! তদন্ত শেষে ক্লীন সার্টিফিকেট নিয়ে বীরের বেশে আবার তো বসতে পারতেন আরাম কেদারায়।

এখন আর সেই ফুলেল শুভেচ্ছার ব্যাপারটা মনে হয় থাকলোনা। জল যথেষ্ঠ ঘোলা হয়েছে, আওয়ামী লীগের ভোটও কমেছে।

শুভকামনা রইলো পদ্মা সেতুর জন্য।

পদ্মা নিয়ে মুহিতের ৪টি বিকল্প চিন্তা, প্রধানমন্ত্রীর কয়টা?

পদ্মা সেতুঃ দুর্নীতির সংজ্ঞা পাল্টাতে হবে মনে হচ্ছে

SMS to Prime Minister Sheikh Hasina

Corruption cripples development

একজন মন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন, এদিকে বিরোধীদল বিএনপি কি আর বসে থাকবে?

ফখরুল মিয়া খবর পাওয়ার সাথে সাথেই মন্তব্য করলেন পদত্যাগ যেহেতু করেছে তার মানে দুর্নীতি হয়েছে। সুযোগের সদ্ব্যবহার আর কি!

বিরোধীদল এটাকে ইস্যু বানাতে পারে এমন আশংকা নিশ্চয়ই ছিল প্রধানমন্ত্রীর মনে। তাই তো সুরঞ্জিতকে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী বানিয়ে রাখলেন, আর জাহাঙ্গীরনগরের প্রাক্তন উপাচার্য শরীফ এনামুল কবীরকে সরালেন সন্তর্পনে, আর সাথে নির্দেশনা দিয়েছিলেন আন্দোলনকারী শিক্ষকদের যেন ক্যাম্পাসে কেউ আনন্দ…

View original post 227 more words