শহীদের সন্তানকে রাজাকারের পোলা চাবুক মারার কথা বলার ধৃষ্ঠতা পায় কিভাবে?

Zafar Iqbal_Mahmud Us Samadদুইখান কথা ও একখান ছোট্ট প্রতিবাদ
————————————————————————————————
*** প্রথম কথা হইলো এই বাংলায় একজন শহীদের সন্তানকে একজন রাজাকারের পোলা চাবুক মারার কথা বলার ধৃষ্ঠতা পায় কিভাবে?

*** দ্বিতীয় কথা হইলো যার বাপ মুক্তিযুদ্ধের সময় থানা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান ছিলো সেই লোক আওয়ামী লীগের নমিনেশনে এম.পি হয় কিভাবে?

সাধারণ মানুষ তো করেছেনই, বেশ কয়েকজন আওয়ামীলীগার কেও এই ঘটনার প্রতিবাদ করতে দেখেছি। কিন্তু, সেই প্রতিবাদের মধ্যে একটা সতর্কতার একটা ছায়া লক্ষ্যণীয় (জয় প্রসঙ্গ চলে আসতে পারে এ কারণেই হয়তো)। যাইহোক, কাউকে বলতে শুনলাম না জাতির একজন শ্রেষ্ঠ সন্তানকে, একজন শহীদ সন্তান Muhammed Zafar Iqbal স্যারকে অবমাননামূলক কথা বলার জন্য রাজাকার পুত্র মাহমুদ উস সামাদ কায়েস চৌধুরীকে বিচার চাই, বহিঃস্কার চাই। দল থেকে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা চাই, শাবিপ্রবি সিন্ডিকেট মেম্বার থেকে বহিঃস্কার চাই।

যতদিন রাজাকারপুত্র কায়েসের বিরুদ্ধে দলীয় কোন এ্যাকশন, ব্যবস্থা না হতে দেখবো ততদিন আমি এই ইস্যু নিয়ে একটা করে স্ট্যাটাস দিয়ে যাবো (চেষ্টা করবো)। জাফর ইকবাল স্যারের কাছে আমরা (বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম) এবং এই দেশ অনেকভাবে কৃতজ্ঞ। সেটা স্যারকে কখনো বলা হয় না। আমার এই ডিজিটাল প্রতিবাদ সেই লাখো কৃতজ্ঞ মানুষের ভীড়ে ক্ষুদ্র একজনের কৃতজ্ঞতার বহিঃপ্রকাশ যেটি চলতে থাকবে, এই ঘটনার কোন বিচার না হওয়া পর্যন্ত।

নির্ঘন্ট:
রাজাকারপুত্র মাহমুদ উস সামাদ কায়েস চৌধুরী যা বলেছিলো সেটা এই লিংকে শোনা যাবে:https://youtu.be/YOONNcC9WpQ

মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর বাড়ি ফেঞ্চুগঞ্জের নূরপুর গ্রামে। তার বাবা দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী (শিরু মিয়া) মুক্তিযুদ্ধের সময় শান্তি কমিটির থানা সভাপতি ছিলেন বলে ‍স্থানীয়রা জানান।
লিংক: http://goo.gl/HCIEFK

By Kajal Abdullah