কই মালয়েশিয়ার সেকেন্ড হোম কিংবা কানাডার বেগম পাড়ায় যাওয়ার আকাঙ্খাকে কে তো কারও মনে হয় না ‘মানসিক অসুস্থতা’!

“শ্রমিকদের গন্তব্য তো মালয়েশিয়ার কোন সেকেন্ড হোমে না, শ্রমিকরা যেতে চায় মালয়েশিয়ার রাবার প্ল্যান্টেশানে!
শ্রমিকেরা তো স্রেফ কাজের আশায় বিদেশ যেতে চায়, ক্ষমতা আর বিলাসের জন্য দেশ লুট তো আর করে না!
কই মালয়েশিয়ার সেকেন্ড হোম কিংবা কানাডার বেগম পাড়ায় যাওয়ার আকাঙ্খাকে কে তো কারও মনে হয় না ‘মানসিক অসুস্থতা’!
কেউ বিষ্ময় নিয়ে প্রশ্ন করে না, এত কিছু থাকার পরেও এরা কেন চুরি, দুর্নীতি, লুন্ঠন করছে!
দুর্নীতি করে দেশকে বিশ্বের ১ নম্বর পজিশনে নিয়ে গেলেও তো দেশের ‘সুনাম’ ক্ষুণ্ণ করার অপরাধেতাদের শাস্তির কথা কাউকে বলতে শোনা যায় না..
কিন্তু দরিদ্র শ্রমজীবি মানুষ একটু ভালো ভাবে বেচে থাকার আশায়, ঘামের উপযুক্ত মূল্য পাওয়ার আকাঙ্খায় মরিয়া হয়ে বিদেশ যেতে চাচ্ছে বলে বিষ্ময়ের শেষ নেই! এই দরিদ্র মানুষরা নাকি মানসিক ভাবে অসুস্থ! দেশের সুনাম ক্ষুণ্ণ করার অপরাধে তাদের নাকি শাস্তি দিতে হবে!
ও, গরীবের বুঝি ভালো ভাবে বেচে থাকার ইচ্ছা থাকতে নেই!
গামের্ন্টস, কন্সট্রাকশান কিংবা দিনমজুরের ৫/৭ হাজার টাকার ন্যূনতম মজুরির অনিশ্চিত জীবন নিয়েই সারা জীবন তাদেরকে সন্তুষ্ট থাকতে হবে..
ধানের দাম না পেলেও ধান ক্ষেতেই পড়ে থাকতে হবে কৃষকের সন্তানদের..
দুধ ভাত শুধু তাহাদের, গরীব কেবলই পাথর চিবুতে বাধ্য..
এই বাজারে পরিবার নিয়ে খেয়ে পড়ে মানুষের মতো বেচে থাকার জন্য ২০ হাজার টাকার কম মজুরি হলে চলে না..
কিন্তু বাংলাদেশের শ্রমজীবি মানুষদের জন্য দেশের ভেতরে এমন কোন খাত নেই যেখানে ভালো ভাবে পরিবার নিয়ে বেচে থাকার মতো মজুরি পাওয়া যায়..
এই দরিদ্র মানুষরা যে ২০ হাজার টাকা মজুরির আশায় মালয়েশিয়ায় যেতে চাইবেন তাতে আশ্চর্য হওয়ার তো কিছু দেখি না..
বৈধ ভাবে যাওয়ার ব্যাবস্থা থাকলে তারা তো বৈধ ভাবেই যেতেন… নিজের জমি বাড়ি বেচে, ধার দেনা করে এভাবে বহু মানুষই গেছেন.. আর আপনারা তাদের কষ্টার্জিত রেমিটেন্স নিয়ে গর্ব করেছেন!
কিন্তু বৈধ ভাবে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ করে আপনাদের লোকেরাই তো অবৈধ পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার রাস্তা খুলেছে.. মিথ্যা প্রতারণা এমনকি জোর জবরদস্তি করে গরীব মানুষদেরকে দাস হিসেবে নৌকায় তুলেছে.. এর বিনিময়ে কোটি কোটি টাকা কামিয়েছে..
এতদিন কি এগুলো জানতেন না, এখন কেন আকাশ থেকে পড়ার ভান করছেন, কেন নিজেদের দোষ স্বীকার না করে উল্টো দরিদ্র মানুষদের দোষী করছেন?
এত দিন ধরে ফোলানো উন্নয়নের বেলুন ফুটো হয়ে গেছে বলে খুব রাগ হচ্ছে এই দরিদ্র মানুষদের উপর, তাই না?”

By Kallol Mustafa